I would like to present to you today the story of a girl. She is seeing the light of the world coming out of her mother’s womb, she is feeling a sharp pain as soon as she sees the first light in her eyes. What is it? Death? Should she taste death now? But wasn’t she born a few moments back? Yes. Think about it, 18 out of every 1000 births in our country go through this same experience.
Even if the burden of birth is somehow passed, if the person is a girl, then her troubles are just beginning. In the lack of awareness and mismanagement of family and society since childhood, it is almost certain that she will be injured with mental health issues at some point in her life. Even then, if she can reach the age of childbirth, there is a high possibility that she has to suffer the pain of death during childbirth. I’m not saying this pain is bad in any way, it’s a natural law. But the irregularity is when the person dies from this pain. Yes. In our country, 173 out of 1 lakh mothers are losing their lives in this very same way.
What do you think? If he is a boy, the path in front of him is unobstructed? No. At some point in his life, he is exposed to a monster called drugs. And once addicted to it, it’s needless to tell you what happens in his life. Yes. 25 lakh people are victims of drug addiction in our country.
Even if you have the fortune to fight and win every single stage of these calamities, it is still highly probable that the road accident will do the work that the previous obstructions couldn’t. In our country, 855 people die in road accidents every year.
Is this the end? No. Added with all these are numerous viral diseases like hepatitis, dengue, AIDS etc.
In the light of SDG 3, we strive to promote the health of citizens of all ages and, above all, well-being of both public and private sectors by battling all these calamities all around the world, including Bangladesh.

বাংলা
একজন মানুষের কথা আজকে আপনাদের সামনে তুলে ধরতে চাই। সে মায়ের পেট থেকে বেরিয়ে পৃথিবীর আলো দেখছে, তার চোখে প্রথম আলো পড়তেই সে কীসের একটা তীব্র যন্ত্রনা অনুভব করছে। সে কী? মৃত্যু? জন্মের সাথে সাথেই তাকে মৃত্যুর স্বাদ পেতে হবে? হ্যা। ভেবে দেখুন, আমাদের দেশে প্রতি ১০০০ জন্মের মধ্যে ১৭টি শিশু এই একই অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে যায়।
জন্মের বোঝা কোনভাবে পার হয়ে গেলেও সেই মানুষটি যদি মেয়ে হয় তাহলে তো তার কষ্ট কেবল শুরু। ছোটবেলা থেকে পরিবার ও সমাজের অসচেতনতা ও অব্যবস্থাপনায় এটা প্রায় নিশ্চিত যে সে তার জীবনের কোন না কোন সময়ে মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে আহত হয়েছে। তারপরেও যদি সে সন্তান প্রসব করার পর্যায়ে পৌছাতে পারে, তার শুরু হয়ে যায় মৃত্যুযন্ত্রনা। আমি বলছি না এই যন্ত্রনা কোনভাবেই খারাপ, বরং এটাই প্রাকৃতিক নিয়ম। কিন্তু অনিয়মটা হচ্ছে যখন এই যন্ত্রনা থেকেই মানুষটির মৃত্যু ঘটে। হ্যা। আমাদের দেশে এখন ঠিক এইভাবে ১ লক্ষের মধ্যে ১৭৩ জন মা জীবন হারাচ্ছে।
কী ভেবেছেন? সে যদি ছেলে হয়, তার সামনে একদম বাধাহীন পথ? না। জীবনের কোন না কোন পর্যায়ে সে উন্মুক্ত হয় মাদক নামের দানবের মুখে। এবং তাতে একবার আসক্ত হলে যে তার জীবনের কী হয়, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। হ্যা। আমাদের দেশে মাদকাসক্তির শিকার ২৫ লক্ষ মানুষ।
এরপরও যদি এইসব বাধা বিপত্তি পেরিয়ে, প্রতিটা বাধার সাথে প্রাণপণ যুদ্ধ করে বেঁচে থাকার সৌভাগ্য আপনার হয়, তারপরেও এটা অত্যন্ত সম্ভাব্য যে সড়ক দুর্ঘটনা সেই কাজ করে দিবে যা আগের বাধাগুলো করতে পারে নি। আমাদের দেশে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রতি বছর মৃত্যু হয় ৭৮৫৫ মানুষের।
এখানেই শেষ? না। এর সাথে আরো আছে হেপাটাইটিস, ডেংগু, এইডসের মতো ভাইরাল রোগ ইত্যাদি আরো কত কিছু।
SDG 3 এর আলোকে আমরা সব বয়সের নাগরিক স্বাস্থ্য ও সর্বোপরি ‘ভালো থাকা’ উন্নীত করার চেষ্টা করে যাচ্ছি সরকারি ও বেসরকারি উভয় দিক থেকে।